নিরাপদ নিউজ: জার্মানির ভিসবাডেন শহরে তুর্কী প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগানের একটি ভাস্কর্য স্থাপন করা হয় চলতি সপ্তাহের সোমবার। তবে একদিন পরেই সেটি সরিয়ে নিয়েছে দেশটির ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।

তবে এর আগে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল, যেহেতু ভাস্কর্যটির নিরাপত্তা নিশ্চিত করা সম্ভব হবে না, তাই এটি সরিয়ে ফেলা হবে।

অপরদিকে জার্মানির সরকারি প্রচারমাধ্যম জেডডিএফ জানিয়েছে, স্থানীয় ক্ষুব্ধ জনগণের কাছ থেকে ভাস্কর্যটি ‘রক্ষা’ করতে পুলিশকে কাজ করতে হয়েছে। এছাড়া ‘প্রচণ্ড বিবাদে’ লিপ্ত কয়েকজন কুর্দি ও তুর্কি-জার্মানকেও আলাদা করে দেয় পুলিশ।

শহর কর্তৃপক্ষের একজন মুখপাত্র জার্মান সংবাদ সংস্থা ডিপিএকে জানিয়েছেন, এটি (প্রতিমূর্তি) একটি শিল্পকর্ম ছিল, ভিসবাডেন বিয়ানালে ফর কনটেম্পরারি আর্ট’র অংশ। তবে শহর কর্তৃপক্ষকে না জানিয়ে ভাস্কর্যটি স্থাপন করা হয়েছিল।

এদিকে, ভাস্কর্য সরিয়ে ফেলার একটি ভিডিও ক্লিপ টুইটারে প্রকাশ করেছে ভিসবাডেন পুলিশ। ভিসবাডেন শহরে স্থাপিত ওই ভাস্কর্যে এরদোগানকে তার ডান হাত উপরে তোলা অবস্থায় দেখা গেছে। প্রতিমূর্তিটি দেখতে অনেকটা ইরাকের সাবেক নেতা সাদ্দাম হুসেনের একটি ভাস্কর্যের মতো ছিল, যা মার্কিন বাহিনী ২০০৩ সালে ভেঙে ফেলে।

এরদোগানের ভাস্কর্য স্থাপনের পর স্থানীয় কয়েকজন উৎসাহী তুর্কি-জার্মানকে ওই প্রতিমূর্তির সঙ্গে সেলফি তুলতে দেখা গেছে। তবে স্থানীয় কুর্দ ও অন্যরা একজন কর্তৃত্ববাদী নেতার প্রতি সমর্থন প্রকাশের বিষয়টির সমালোচনা করেছেন।

উল্লেখ্য, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোগানের আগামী মাসে বার্লিন সফরের কথা রয়েছে। তবে তার কর্তৃত্ববাদী আচরণের জন্য অনেক জার্মান এই সফরের বিরোধিতা করছেন।